কেয়ারটেকার ইন্টার ফার্স্ট ইয়ারে পড়া একটা ছেলে

Motivation

কেয়ারটেকার ইন্টার ফার্স্ট ইয়ারে পড়া একটা ছেলে

একটু সময় নিয়ে পড়বেন!!!

 নিজের সাথে ঘটে যাওয়া এক ঘন্টা আগের ঘটনাঃ

আমি যে স্টুডেন্ট টা পড়ায় ওর বাসার কেয়ারটেকার হলো ইন্টার ফার্স্ট ইয়ারে পড়া একটা ছেলে।

আমি এটা জানতাম না।আজকে যখন স্টুডেন্ট কে পড়াতে ঢুকলাম ছেলেটা সুন্দর করে সালাম দিলো!আমি তেমন কিছু মনে করিনি জাস্ট সালামের উত্তর দিয়ে রুমে ঢুকে গেছি।যাই হোক রেগুলার যেভাবে পড়ায় সেভাবে পড়ানো শেষ করলাম।পড়া শেষে বের হলাম।ছেলেটা আবারো সালাম দিলো।এবার একটা অবাক করার ব্যাপার দেখলাম!দেখি ছেলেটা ইন্টারের রসায়নের বই পড়তেছে তাও আবার বাইরের আলোতে!!!এটা দেখে ইন্টারেস্টেড হয়ে ছেলেটার সাথে কথা বললাম!তারপরে ছেলেটার সাথের কনভারসেশন হুবুহু তুলে ধরলামঃ

আমিঃতুমি রসায়ন পড়তেছো ইন্টারের!কোথায় পড়ো তুমি?

ছেলেটাঃস্যার আমি আমার দেশের(গ্রামের) ওইখানে কলেজে ভর্তি।

আমিঃক্লাস করো না?

ছেলেটাঃনা স্যার।

আমিঃএকা একা ফিজিক্স,বায়োলজি, কেমিস্ট্রি পড়ো সমস্যা হয়না?

ছেলেটাঃনা স্যার খুব একটা না!

আমিঃএস এস সি রেজাল্ট কি তোমার?

ছেলেটাঃ৪.৬০(আমি জাস্ট হা করে তাকাই ছিলাম)!!!

আমিঃএখানে হেল্প করার কেউ আছে?(কথা বের হচ্ছিলো না তখন আমার!খুব কষ্টে প্রশ্ন করতেছিলাম)

ছেলেটাঃনা স্যার নিজেই পড়ি।

আমিঃআচ্ছা শুনো আমি হয়তো কমার্সের কিন্তু আমি তোমার জন্য ওপেন।তোমার যে কোনো প্রব্লেম আমাকে বলবা।লেখাপড়া নিয়ে যে কোনো সমস্যা আমাকে বলবা।

ছেলেটাঃজ্বী স্যার।

আমিঃআচ্ছা ইংলিশ এর অবস্থা কি?

ছেলেটাঃইংলিশেই একটু সমস্যা হয় স্যার।

আমিঃএখন থেকে রাফিকে পড়ানো শেষে আমি তোমাকে ইংলিশ পড়াবো।রেডি থাকবা!

ছেলেটাঃও নিজেও তখন আর কিছু বলতে পারতেছিলো না!আচ্ছা স্যার ছাড়া ওর মুখে আর কিছু আসেনাই তখন।

আমিঃআচ্ছা পড়ো ভাই!দেখা হবে এই বলে বিদায় নিলাম!

ছেলেটার থেকে বিদায় নেয়ার পর খুব কান্না পাচ্ছিলো খুব!এতটা খারাপ অপরিচিত কারো জন্য খুব কম ই লাগে!ছেলেটা আমাকে জাস্ট একটা নাড়া দিয়ে দিছে।

বিলিভ মি ছেলেটার সাথে যে ৪/৫ মিনিট কথা বলছি আমি লাইফের অনেক কিছু শিখেছি জাস্ট এই সময়টুকুতে।যে কোনো পরিস্থিতিতে মানুষ নিজেকে সফল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারে যদি ইচ্ছাশক্তি আর পরিশ্রম করার মানসিকতা টা থাকে।জাস্ট একবার ভাবো যে এই ছেলেটা কতটা  সুযোগ সুবিধা বঞ্চিত! আমরা -আপনারা ওর থেকে ভালো আছি না?আমরা ওর থেকে অনেক প্রিভিলেজ প্রাপ্ত না?তারপরেও আমরা সেটা কাজে লাগায় না।একটু কিছু না পেলেই লাইফ ডিপ্রেশনে ভরিয়ে দিই।এদের থেকে অনেক কিছু শেখার আছে লাইফে।এরা অনেক কিছু করবে লাইফে জাস্ট একটু সাহায্যের হাত বাড়ানো দরকার।

সো যারা এখনো কোথাও চান্স না পেয়ে হাল ছেড়ে দিচ্ছো তারা হার মেনো না!হারার আগে কেনো হারবা।তোমরা যথেষ্ট রিসোর্স পাচ্ছো!সেগুলো কাজে লাগাও দেখবা আল্লাহ ঠিক মুখ তুলে তাকাবেন☺

Life is truly a blessing!!!


Oajedur Rahman

AIS,DU

Leave your thought here

Your email address will not be published. Required fields are marked *